[ আমরা সম্মিলিত অনুশীলনের ভিত্তিতে, মানুষ ও মনুষ্যত্বের মুক্তিতে, মানবীয় মর্যাদা প্রতিষ্ঠার মহতী সংগ্রামে- আমাদের আদর্শিক সত্তা ও সমন্বয়ক দিশারী শ্রদ্ধেয় ‘বড়দা (আব্দুর রাজ্জাক মুল্লাহ রাজু শিকদার)’র নির্দেশিত পথই- সংগঠন ও সংগঠন কাঠামোর ক্ষেত্রে মতাদর্শিক দিশা হিসেবে গৃহীত; সেই আলোকেই অত্র প্রকাশনা অনুমোদিত। ]



মেনু

৭ দিনের সংবাদ দুনিয়া

 
নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন
০৬-০২-২০১৭

সাবেক সচিব কে এম নুরুল হুদাকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ করে ৫ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠন করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

 

ইসির বাকি সদস্যরা হলেন, সাবেক অতিরিক্ত সচিব মাহবুব তালুকদার, সাবেক সচিব রফিকুল ইসলাম, অবসরপ্রাপ্ত জেলা জজ কবিতা খানম ও অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহাদৎ হোসেন চৌধুরীকে। ৬ই জানুয়ারি সচিবালয়ে ব্রিফিংকালে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোঃ শফিউল আলম এই তথ্য জানান। বঙ্গভবনের সম্মতি নিয়েই এসব নাম ঘোষণা করা হয়েছে বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন।

 

একই দিনে বিচারপতি মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে সার্চ কমিটির সদস্যরা বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এই নামের তালিকা তার হাতে তুলে দেন। এ সময় নিজেদের কাজের প্রক্রিয়া রাষ্ট্রপতির কাছে তুলে ধরেন সার্চ কমিটির সদস্যরা। সার্চ কমিটির পক্ষ থেকে রাষ্ট্রপতিকে জানানো হয়, বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মতামতের ভিত্তিতে এ তালিকা প্রকাশ করার ব্যাপারে তারাও গুরুত্বারোপ করছেন। এতে রাষ্ট্রপতিও সম্মতি জানালে নামের তালিকাটি প্রকাশের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

 

এ বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোঃ শফিউল আলম গণমাধ্যমকে জানান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্ব ৬ সদস্যের সার্চ কমিটি বঙ্গভবনে গিয়ে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। এসময় তারা নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনে অর্পিত দায়িত্ব হিসেবে সম্ভাব্য যোগ্য ১০ ব্যক্তির তালিকা রাষ্ট্রপতির হাতে তুলে দেন। সার্চ কমিটির বৈঠক শেষে কমিটির সদস্যরা বঙ্গভবন ছাড়ার পর মন্ত্রি পরিষদ সচিব সাংবাদিকদের জানান, এ বিষয়ে আজই সচিবালয়ে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন করে সার্চ কমিটির দেওয়া নামের তালিকা প্রকাশ করা হবে।

 

প্রসঙ্গত, নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে এক মাসেরও বেশি সময় ধরে আলোচনার পর তাদের পরামর্শ অনুযায়ী সম্ভাব্য নির্বাচন কমিশনারদের নাম খুঁজতে গত ২৫ জানুয়ারি ৬ সদস্য বিশিষ্ট একটি সার্চ কমিটি গঠন করেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনকে প্রধান করে এই কমিটির সদস্য হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয় হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান, সরকারি কর্মকমিশনের (পিএসসি) চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিক, মহা হিসাব-নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক মাসুদ আহমেদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসি শিরীণ আখতারকে। এ কমিটি প্রথম বৈঠকে বসে গত ২৮ জানুয়ারি। সরকারি প্রজ্ঞাপনে নির্বাচন কমিশনার হিসেবে  সম্ভাব্য যোগ্য ব্যক্তিদের নামের তালিকা করার জন্য তাদের সময় বেঁধে দেওয়া হয় ১০টি কার্যদিবস।

 

সার্চ কমিটি ২৮ জানুয়ারি প্রথম বৈঠকে বসে নিজেদের কর্মপরিকল্পনা ঠিক করে। এরপর দুই ধাপে ১৬ জন বিশিষ্ট নাগরিকের সঙ্গে বৈঠক করে তাদের পরামর্শ শোনে। পাশাপাশি রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে নির্বাচন কমিশনার হিসেবে যোগ্য ব্যক্তিদের নাম আহ্ববান করে সার্চ কমিটি। দলগুলোও নাম প্রস্তাব করে। সেখান থেকে প্রথমে ২০ জনের ও পরে তা কমিয়ে ১০ জনের তালিকা করে সার্চ কমিটি। এই তালিকা রাষ্ট্রপতির হাতে তুলে দিয়ে নিজেদের দায়িত্ব শেষ করেন সার্চ কমিটির সদস্যরা।

 

তথ্য সূত্রঃ

http://www.banglatribune.com/national/news/179259/

http://www.natunbarta.com/national/2017/02/06/176011/

http://www.dhakatimes24.com/2017/02/06/19536/