[ আমরা সম্মিলিত অনুশীলনের ভিত্তিতে, মানুষ ও মনুষ্যত্বের মুক্তিতে, মানবীয় মর্যাদা প্রতিষ্ঠার মহতী সংগ্রামে- আমাদের আদর্শিক সত্তা ও সমন্বয়ক দিশারী শ্রদ্ধেয় ‘বড়দা (আব্দুর রাজ্জাক মুল্লাহ রাজু শিকদার)’র নির্দেশিত পথই- সংগঠন ও সংগঠন কাঠামোর ক্ষেত্রে মতাদর্শিক দিশা হিসেবে গৃহীত; সেই আলোকেই অত্র প্রকাশনা অনুমোদিত। ]



মেনু

৭ দিনের সংবাদ দুনিয়া

 
যুক্তরাষ্ট্রের কিছু হলে আদালত দায়ী থাকবেঃ ডোনাল্ড ট্রাম্প
০৬-০২-২০১৭

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের আরোপ করা ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আদালত স্থগিত করে দেবার পর বিচারক ও বিচার ব্যবস্থার কড়া সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেছেন 'যুক্তরাষ্ট্রে যদি কোনও কিছু ঘটে' তাহলে বিচারকরাই দায়ী থাকবে এবং আমেরিকানদের উচিত হবে এ ব্যবস্থাকে দোষারোপ করা।

 

সাতটি মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে ডোনাল্ড ট্রাম্প যে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিলেন গত ৫ই জানুয়ারি ২০১৭ খ্রিস্টব্দে তা স্থগিত করে আদালতের নির্দেশনার বিরুদ্ধে করা একটি আপিল খারিজ করে দিয়েছেন দেশটির একটি আদালত। আর এ রায় সম্পর্কে ৬ জানুয়ারি ট্রাম্প এভাবেই মন্তব্য করেন।

 

তিনি আরও বলেছেন যে, যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশকারী ব্যক্তিদের 'অত্যন্ত সতর্কভাবে' তল্লাশির জন্য সীমান্তের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

 

এদিকে একটি ফেডারেল আদালত সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণের ওপর ট্রাম্পের জারি করা নিষেধাজ্ঞা স্থগিত করার ফলে এ সংক্রান্ত সম্পূর্ণ শুনানি শেষ না হওয়া পর্যন্ত ঐ সমস্ত দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আদালতের নির্দেশনা জারি থাকবে। এবং ট্রাম্পের আপিল খারিজ করে দিয়ে আদালত হোয়াইট হাউজকে এবং বিভিন্ন প্রদেশের আইনজীবীদের আরও বেশি যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য সোমবার পর্যন্ত সময় দিয়েছে।

 

অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রদেশের আইনজীবীরা বলছেন, সাতটি দেশের নাগরিকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি পুরোপুরি অসাংবিধানিক। তবে জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট নিজেদের যুক্তি তুলে ধরে বলেছে, মি: ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশের বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ করার কোনও এখতিয়ার প্রদেশগুলোর নেই। আর জাতীয় নিরাপত্তা ঝুঁকি সংক্রান্ত প্রেসিডেন্টের কোনও সিদ্ধান্ত নিয়েও প্রশ্ন তোলার কোনও অধিকার তাদের নেই।

 

দেশের জাস্টিস ডিপার্টমেন্টের সাথে আদালত এমন মুখোমুখি অবস্থায় আসায় প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বিচারক ও বিচারব্যবস্থার প্রতি নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন টুইটারে।

 

তথ্য সূত্রঃ

http://www.bbc.com/bengali/news-38880628