[ আমরা সম্মিলিত অনুশীলনের ভিত্তিতে, মানুষ ও মনুষ্যত্বের মুক্তিতে, মানবীয় মর্যাদা প্রতিষ্ঠার মহতী সংগ্রামে- আমাদের আদর্শিক সত্তা ও সমন্বয়ক দিশারী শ্রদ্ধেয় ‘বড়দা (আব্দুর রাজ্জাক মুল্লাহ রাজু শিকদার)’র নির্দেশিত পথই- সংগঠন ও সংগঠন কাঠামোর ক্ষেত্রে মতাদর্শিক দিশা হিসেবে গৃহীত; সেই আলোকেই অত্র প্রকাশনা অনুমোদিত। ]



মেনু

৭ দিনের সংবাদ দুনিয়া

 
নালিতাবাড়ী উপজেলায় মুক্তিজোটের ১৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত
২৪-১১-২০১৭

বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোট-এর ১৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে গত ২৪শে নভেম্বর শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ী উপজেলার কলসপাড় ইউনিয়নের বালুরঘাট বাজারে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

আলোচনা সভায় নালিতাবাড়ী উপজেলা প্রধান মোঃ ওয়ালিউল্লাহ, উপজেলা স্টিয়ারিং কমিটি প্রধান মোঃ মাসুদ মিয়া, কলসপাড় ২নং ওয়ার্ড কমিটির সমন্বয়কারী মোঃ নয়ন মিয়া, কলসপাড় ৯নং ওয়ার্ড কমিটির ২নং ইউনিট যুগ্ম আহ্বায়ক শ্রী কডু চন্দ্র বিশ্বাস, ১নং ইউনিট যুগ্ম আহ্বায়ক মোঃ হযরত আলী, ৩নং ইউনিট যুগ্ম আহ্বায়ক শ্রী চিত্ত কুমার সিংহ, ইউনিট সদস্য মোঃ বকতিয়ার, শেরপুর সদর উপজেলা প্রধান মোঃ শহর আলী, শেরপুর উপজেলা কাঠামো পর্ষদ সভ্য মোঃ শাহিন মিয়া, শেরপুর জেলা পরিচালনা বোর্ড প্রতিনিধি মোঃ আঃ আলীম এবং শেরপুর জেলা সমন্বয়কারী মোহাম্মদ রেজ্জাক আলী উপস্থিত ছিলেন।

 

আলোচনায় শেরপুর জেলা সমন্বয়কারী বলেন, নির্বাচন কমিশনের সাথে সংলাপে মুক্তিজোট ‘জাতীয় পরিষদ গঠন’- এর প্রস্তাব দিয়ে সব রাজনৈতিক দলের এক টেবিলে বসার সুযোগ করে দিয়েছে, যা আজ জাতীয় ঐক্যতার স্বার্থে ১৬ কোটি মানুষের চাওয়া ।

 

এছাড়াও আলোচনায় জেলা পরিচালনা বোর্ড প্রতিনিধি মোঃ আঃ আলীম মুক্তিজোট গড়ে উঠার সংগ্রামী ইতিহাস সম্পর্কে  আলোকপাত করেন। তিনি বলেন, ২০০০ খ্রিস্টাব্দের ২৪ নভেম্বর মুক্তিজোটের যাত্রা শুরু হওয়ার পর নেতৃত্ব গড়ে তোলার প্রক্রিয়ায় ১২ বছর অতিবাহিত করে। ২০১৩ খ্রিস্টাব্দে নিবন্ধন প্রাপ্তির পর থেকে গত ৪ বছরের রাজনৈতিক পথচলায় যা কিছু অর্জন তার পেছনে অনেক ধৈর্য্য, ত্যাগ ও সংগ্রামের ইতিহাস রয়েছে, যা আমাদের আগামী দিনের পথ চলায় আলোকবর্তিকা হয়ে থাকবে।

 

সবশেষে জেলা সমন্বয়কারী মোহাম্মদ রেজ্জাক আলী উপস্থিত নেতৃবৃন্দকে মুক্তিজোটকে উপজেলার সর্বস্তরে ছড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানান এবং সবাইকে দলের ১৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে আলোচনা শেষ করেন।