[ আমরা সম্মিলিত অনুশীলনের ভিত্তিতে, মানুষ ও মনুষ্যত্বের মুক্তিতে, মানবীয় মর্যাদা প্রতিষ্ঠার মহতী সংগ্রামে- আমাদের আদর্শিক সত্তা ও সমন্বয়ক দিশারী শ্রদ্ধেয় ‘বড়দা (আব্দুর রাজ্জাক মুল্লাহ রাজু শিকদার)’র নির্দেশিত পথই- সংগঠন ও সংগঠন কাঠামোর ক্ষেত্রে মতাদর্শিক দিশা হিসেবে গৃহীত; সেই আলোকেই অত্র প্রকাশনা অনুমোদিত। ]



মেনু

৭ দিনের সংবাদ দুনিয়া

 
ইসি গঠনে আইন প্রণয়নে পূর্বের বক্তব্য থেকে সরে এসেছেন আইনমন্ত্রী
১২-০১-২০১৭

১২ই জানুয়ারি ২০১৭ খ্রিস্টাব্দে বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে অধস্তন আদালতের বিচারকদের ‘ই-প্রকিউরমেন্ট’ বিষয়ক কর্মশালা উদ্বোধনের পর ইসি গঠনে আইন প্রণয়ন প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন “এই আইনটা কিন্তু ঝটপট তৈরি করা যায় না। এটার একটা সুদূর প্রসারী ইফেক্ট আছে। সে কারণে এই আইনটা চিন্তা-ভাবনা করে করা উচিৎ। সেক্ষেত্রে আমি মহামান্য রাষ্ট্রপতির নির্দেশনার অপেক্ষা করছি।”

 

এদিকে গত ৪ঠা জানুয়ারি রাজধানীর বিচার প্রশাসন ও প্রশিক্ষণ ইনিস্টিটিউটে এক কর্মশালার উদ্বোধন শেষে আগামী সংসদ অধিবেশনে এ বিষয়ে কোনো আইন করতে সরকারের প্রস্তুতি আছে কি না সাংবাদিকরা জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেছিলেন ‘আমাদের একটি লেজিসলেটিভ বিভাগ আছে। রাষ্ট্রপতি কিছু করার জন্য যখন নির্দেশ দেবেন। আমরা নিশ্চয় সেই কাজটা তরিৎ করার ক্ষমতা রাখি।’

 

এমনকি নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনে ১১ই জানুয়ারি ২০১৭ খ্রিস্টাব্দে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বলা হয়, এখনই আইনটি করা যেতে পারে। আওয়ামী লীগের ওই প্রতিনিধি দলে আনিসুল হকও ছিলেন।

 

প্রসঙ্গতঃ সংবিধান অনুসারে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন কমিশন গঠন করতে পারেন তবে তা আইনের অধীনে, কিন্তু এখনও সেই আইন করা হয়নি। নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে চলমান সংলাপে বিভিন্ন দলের পক্ষ থেকে আইনটি দ্রুত প্রণয়নের তাগিদ দেয়া হয়েছে। 

 

তথ্য সূত্রঃ

http://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1271769.bdnews

http://www.dhakatimes24.com/2017/01/04/14886 /