[ আমরা সম্মিলিত অনুশীলনের ভিত্তিতে, মানুষ ও মনুষ্যত্বের মুক্তিতে, মানবীয় মর্যাদা প্রতিষ্ঠার মহতী সংগ্রামে- আমাদের আদর্শিক সত্তা ও সমন্বয়ক দিশারী শ্রদ্ধেয় ‘বড়দা (আব্দুর রাজ্জাক মুল্লাহ রাজু শিকদার)’র নির্দেশিত পথই- সংগঠন ও সংগঠন কাঠামোর ক্ষেত্রে মতাদর্শিক দিশা হিসেবে গৃহীত; সেই আলোকেই অত্র প্রকাশনা অনুমোদিত। ]



মেনু

৭ দিনের সংবাদ দুনিয়া

 
নতুন ভোটার নিবন্ধনে তথ্য সংগ্রহের প্রস্তুতি ইসিতে
০৬-০৫-২০১৭

নাগরিকদের ভোটার করতে আবারও ১৫ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের নিবন্ধন তথ্য সংগ্রহ করতে যাচ্ছে কে এম নূরুল হদা নেতৃত্বাধীন নির্বাচন কমিশন।

 

এ বছর ২০০৩ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে যাদের জন্ম তাদের তথ্য নেওয়া হবে বলে গত ২রা মে ২০১৭ খ্রিস্টাব্দে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সভাপতিত্বে কমিশনের সভায় এ সিদ্ধান্ত হয় বলে জানান ইসি সচিব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।

 

এদিকে, জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ কমিশন সভায় ১৫ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের তথ্য সংগ্রহে তিন ধাপে কাজ করার প্রস্তাব তুলে ধরেন। বাড়ি বাড়ি গিয়ে ১লা অগাস্ট থেকে ১৪ই অগাস্ট, ১লা অক্টোবর থেকে ১৫ই অক্টোবর এবং ১লা ডিসেম্বর থেকে ১৫ই ডিসেম্বর পর্যন্ত এই তথ্য সংগ্রহ চলবে।

 

২০১৮ সালের ২ মে এর মধ্যে এ নিবন্ধন শেষ করার পরিকল্পনা রয়েছে ইসির। ২০১৭-১৮ সালে যারা নিবন্ধিত হবেন তাদের খসড়া তালিকা প্রকাশ ও চূড়ান্ত তালিকায় অন্তর্ভুক্তও করা হবে। একবার এ তালিকায় কারও নাম আসার পর ১৮ বছর বয়স হলেই তারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভোটার তালিকাভুক্ত হবেন।

 

পর্যায়ক্রমে ১৫ বছরের কম বয়সীদের তথ্য সংগ্রহেরও পরিকল্পনা রয়েছে বলে ইসির এনআইডি উইংয়ের এক কর্মকর্তা জানান।

 

প্রথমবারের মতো ১৫-১৭ বছর বয়সীদের তথ্য নেওয়া হয় ২০১৫ সালে। এসময় ২০০০ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে যাদের জন্ম তাদের তথ্য সংগ্রহ করা হয়।

 

সর্বশেষ ভোটার তালিকা হালনাগাদ হয়েছে গত বছর নভেম্বরে। এতে ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারি যারা ভোটারযোগ্য হয়েছে, তাদের তালিকাভূক্ত করতে বিশেষ সুযোগ দেওয়া হয়।

 

২০১৩ সালের ৬ অক্টোবর দেশের সব নাগরিককে জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়ার বিধান রেখে বিল পাস করে সংসদ। এর ফলে ভোটার না হলেও ১৮ বছরের কম বয়সীদের জাতীয় পরিচয়পত্র পাওয়ার পথ তৈরি হয়।

 

এরপরই জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগকে ১৮ বছরের কম বয়সীদের পরিচয়পত্র দেওয়ার বিষয়ে কর্মপরিকল্পনা উপস্থাপনে নির্দেশ দেয় ইসি।

 

২০০৭-০৮ সালে ছবিসহ ভোটার তালিকা প্রণয়নের কাজ শুরু হয়। বর্তমানে ১৮ বছর বা তার বেশি বয়সী ৮ কোটি ১৭ লাখের বেশি ভোটার নিবন্ধিত রয়েছে।

 

১৬ কোটির বেশি জনসংখ্যার বাংলাদেশে বর্তমানে ভোটার তালিকায় রয়েছে ৯ কোটি ৬২ লাখ নাম।

 

তথ্য সূত্রঃ

http://bangladesh.shafaqna.com/BD/BD/1786749

http://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article967578.bdnews=